করোনা রোধে স্যানিটাইজার, আইসোলেসনের চেয়েও মাস্ক কার্যকর

করোনা রোধে স্যানিটাইজার, আইসোলেসনের চেয়েও মাস্ক কার্যকর

করোনা মহামারীর প্রকোপে ইতিমধ্যেই বিশ্বের ৭৭ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত। তবে, এতে চমকে যাওয়ার কিছু নেই। কারণ গবেষকরা জানিয়েছেন, মাস্ক ব্যবহার না করলে এই সংখ্যা হয়তো আরো বহুগুণ বাড়তে পারত। তাদের মতে, শুধু বাড়িতে থেকে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে করোনা সংক্রমণের মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। কোভিড-১৯-এর সংক্রমণ রোধে মাস্ক ব্যবহারের একটা বড় ভূমিকা রয়েছে। তাদের এই গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে আমেরিকার একটি সায়েন্স জার্নালে (পিএনএএস : দ্য প্রসিডিংক্স অব দ্য ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস)।

সমীক্ষায় দেখা গেছে, ৬ এপ্রিল উত্তর ইতালি এবং ১৭ এপ্রিল নিউ ইয়র্ক শহরে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার পর থেকেই করোনা সংক্রমণের উপর উল্লেখযোগ্যভাবে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে। পর্যবেক্ষকরা হিসেব করে দেখেছেন, মাস্ক ব্যবহারের ফলে ৬ এপ্রিল থেকে ৯ মে’র মধ্যে ইতালিতে ৭৮ হাজারের উপর এবং ১৭ এপ্রিল থেকে মে’র মধ্যে নিউ ইয়র্ক শহরে ৬৬ হাজারের বেশি সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব হয়েছে।

দেখা গেছে, আমেরিকার অন্যান্য শহরে যখন পাল্লা দিয়ে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বেড়েছে, নিউ ইয়র্ক শহরে মাস্ক ব্যবহার শুরু হওয়ার পর থেকে সেখানে প্রতিদিন প্রায় ৩ শতাংশ হারে সংক্রমণ কমেছে। আর এর ভিত্তিতেই গবেষকদের জানিয়েছেন, কোয়ারেন্টাইন, আইসোলেশন, স্যানিটাইজার দিয়ে বারেবারে হাত ধোয়ার থেকেও করোনা সংক্রমণের মোকাবিলায় মুখে মাস্ক ব্যবহার অনেক বেশি কার্যকরী। ( সূত্র : নয়াদিগন্ত )

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top